কান পরিষ্কার করতে গিয়ে খোঁচাখুঁচি করেন? সাবধান

  বিশেষ প্রতিনিধি    22-03-2024    179
কান পরিষ্কার করতে গিয়ে খোঁচাখুঁচি করেন? সাবধান

কান পরিষ্কারের জন্য আপাতদৃষ্টিতে কটনবাড নিরাপদ মনে হলেও সবসময় তা নাও হতে পারে। সঠিক পদ্ধতি না জেনে কানে কটনবাড দিলে কানের পর্দার ক্ষতি হতে পারে। সেজন্য অনেক চিকিৎসকই কটনবাড দিয়ে কান পরিষ্কার করার পরামর্শ দেন না।

প্রথমেই মাথায় রাখতে হবে কানের নিজস্ব ময়লা কিন্তু কানের শক্র নয়। কানের পর্দা সুরক্ষিত রাখার জন্যই শরীর নিজে থেকে ওয়্যাক্স তৈরি করে। কাঠি বা কটনবাড দিয়ে কানের ময়লা পরিষ্কার করতে গিয়ে সেই ময়লাকে ঠেলে নিজেরাই আরও ভিতরে পাঠিয়ে দিই। আর সমস্যার শুরু কিন্তু সেখান থেকেই। তাই কানের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে চাইলে কোনো কিছু না করাই ভাল।

ভারতীয় একজন চিকিৎসক উত্তম আগরওয়াল বলেন, কানের ওয়াক্স সাধারণত তৈলাক্ত প্রকৃতির হয়। প্রকৃতিগতভাবে কর্ণকুহর আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে এই ওয়্যাক্স। নিয়মিত ইয়ারবাড ব্যবহার করলে কানের ভিতরের চামড়া শুষ্ক হয়ে পড়ে। নরম, চটচটে ওয়্যাক্স শুকিয়ে যায়। কাঠির খোঁচা লেগে তা কানের আরও গভীরে ঢুকে যেতে পারে। সেখান থেকে সংক্রমণ হওয়া অস্বাভাবিক নয়। তা ছাড়া অসাবধানে কানের পর্দায় খোঁচা লেগে তা ছিঁড়ে যেতে পারে। কানে কম শোনা, পাকাপাকি ভাবে শ্রবণশক্তি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কাও থেকে যায়।

তিনি আরও বলেন, বাড়িতে যদি কান পরিষ্কার করতেই হয়, তা হলে নারকেল বা অলিভ অয়েল ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে, রোজ নয়, সপ্তাহে এক বার। এক ফোঁটা করে দু’কানে দু’ফোঁটা তেল দিলে কানের আর্দ্রতা বজায় থাকবে। কিন্তু কানে যদি আগে থেকেই কোনো সমস্যা থেকে থাকে, তা হলে তেল একেবারেই নিষিদ্ধ।

কানের ক্ষতি এড়াতে চাইলে কী করবেন, কী করবেন না?

• কানের বাইরের অংশ সুতির ভিজে কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করা যেতে পারে। তবে সেই কাপড় যেন নরম হয়। চাইলে ওয়েট ওয়াইপ্‌সও ব্যবহার করতে পারেন। • কান কিন্তু নিজেই নিজেকে পরিষ্কার রাখতে পারে। তবে সেই কাজে সাহায্য করার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সাধারণ কিছু ইয়ার ড্রপ ব্যবহার করা যেতে পারে।

• ইদানীং অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি কিনতে পাওয়া যায়। শৌখিন হলেও কানের জন্য সে সব জিনিস একেবারেই নিরাপদ নয়।

শিক্ষা ও স্বাস্থ্য-এর আরও খবর